Menu
Thumbnail

এখন রাত তিনটা-তেইশ | পর্ব-২

Profile Picture

Anika Tahaseen

লিপিকার
  • ক্রিয়েটিভ রাইটিং
  • Aug 07, 2021
  • 155
  • 1

এখন রাত তিনটা তেইশ

পর্ব-২ 

পুরান ঢাকার গলি গুলো বেশ সরু, না আজকে একটু বেশি সরু আর অন্ধকার মনে হচ্ছে। মাথা ঝিম ধরে আছে চোখেও কিছুটা ঝাপসা দেখছি। ধূপের গন্ধে এতক্ষণ দম বন্ধ হয়ে মরার দশা হয়েছিল।

ফোন বেজে উঠল,
হ্যালো?আসসালামু আলাইকুম। 
-অলাইকুম সালাম,আয়েশা কোথায় তুমি?
এতই তো আছি রিকশায়।
-ত্রিচক্রযানে? 
-মানে?
- মানে হল তুমি এত বুদ্ধিমান হয়েও ভাষা জ্ঞানে আমার চেয়ে পিছিয়ে। 
- আশ্চর্য। 
- শুনো, রাত অনেক হয়েছে মেয়ে, টোটো কম্পানির সিইও হয়ে বাইরে ঘোরা বন্ধ করো। এটা ঢাকা শহর ভুলে যেও না।
- আচ্ছা, যাচ্ছি।

এই  জায়েদ লোকটা এত অদ্ভুত কেন? আজকে এত খোঁজ নিচ্ছে কে বলবে কালকেই সে আমাকে অফিসে সবার সমানে ঝেড়েছে। 
গত বছর কোন এক শুক্রবারে উনি প্রচন্ড বৃষ্টির মধ্যে আমাদের বাসার নিচে এসে আমাকে ফোন দিয়ে বললেন -রাস্তায় একটা কদম গাছ দেখে মনে হল তোমার জন্য কিছু ফুল নিয়ে যাই। তুমি তো আবার হুমায়ুন আহমদের বই অনেক পড় তোমার কদম ফুল পচ্ছন্দ হওয়ার কথা।

আবার একটা গানও আছে - একগুচ্ছ কদম হাতে....... শুনেছ?

জায়েদ সাহেব কে বলা উচিত ছিল আমার সব ফুল ভালো লাগে শুধু এক কদম ফুল ছাড়া প্রচুর পিঁপড়ে থাকে এই ফুলে, বিরক্তিকর একটা বিষয়। 

বাসায় আসতে না আসতেই আম্মু বিলাপ করা শুরু করল,আমি ফ্রেস হলাম খাওয়া দাওয়া করলাম আর ব্যাকগ্রাউন্ডে মিডিয়াম ভলিউমে আম্মুর বিলাপ চলতে থাকল রাত এগারোটা পর্যন্ত। 
ফোনটা হাতে নিয়েই মনে পরল জালাল লোকটার ফেসবুক প্রোফাইলটা একটা ঢু মেরে আসি, সাধারণ প্রফাইল, বলার মত বিশেষ কিছু লক্ষ্য করলাম না তবে অশ্লীলতার চরমে গিয়েছে তার কিছু কমেন্ট। 

রাত - ২.৪৫ 

গুগলে একটা ইনফরমেশন খুঁজছি আলামিন ওই দিন বলছিল, ফসফরাসের আরেক নাম লুসিফার এটা আমিও ইন্টার লেভেল এ পড়েছি ক্যামেস্ট্রিতে আবার টিভি - কম্পিউটার স্ক্রিনের পিকচার টিউবে ফসফরাস ব্যাবহার করা হয়। (লুসিফার শয়তানের নাম) মজার ব্যাপার জানলাম শয়তান নাকি নিজেকে ফলেন এন্জেল বলে। ব্যাপার টা হাস্যকর কারণ, যতটুকু জানি ইসলামের সব কয়টি কিতাব অনুযায়ী সে জিন। ফেরেশ্তার মর্যাদা পেয়েছিল মাত্র।

আশা করি প্রতিদিনের মত আজকে কিছু ঘটবে না। ঘুমাবো না আজকে, একেবারে ফজরের নামাজ পড়ে ঘুমাবো।রুমের এই লাল ল্যাম্প লাইটা 
পাল্টাতে হবে লাইটার কারণে সবকিছু ভৌতিক মনে হয়।

 হঠাৎ রুমের টেম্পারেচার কমতে শুরু করল।

এখন রাত তিনটা আমি নিশ্চিত, ডেভিল আওয়ার শুরু হয়ে গেছে। পা থেকে সব অবশ হয়ে আসছে, শরীরের সেন্সর গুলো কাজ করা  বন্ধ করে দিচ্ছে। আর প্রতিদিনের মত আজকেও ড্রেসিং টেবিলের আয়নাটাতে  পানির মত ডেউ উঠছে বলে মনে হচ্ছে।ইলিউশনের প্রথম স্টেজ এ আছি।দ্রুত গভীর হবে ব্যাপারটা, প্রতিদিন তাই হয়।
আমি সূরা নাস পড়া শুরু করলাম চোখ টিপে বন্ধ করে রেখেছি কোন অপ্রত্যাশিত কিছুর সম্মুখীন হতে চাচ্ছি না। হঠাৎ মনে হল আমার শরীরের এসপার ওসপার একটা বাতাস চলে গেলে আর আমি চোখ খুলাম আতঙ্কে। আমার পাশে শুয়ে আছি অবিকল আমি, সেই আমি ঝাপসা, তার চোখে কোন মনি নেই সচ্ছ সাদা চোখ।মুখে সুক্ষ হাসির রেখা। এইকি আমার কারীন? যার কথা জালাল বলেছিলেন, এ কেন আসে প্রতিদিন?
আমি আবার জ্ঞান হারিয়ে ফেললাম। 

চলবে....

রিপোর্ট

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Profile Picture
Rashadul Shaon Aug. 7, 2021, 11:46 p.m.

Keep it up <3

মন্তব্য লিখুন

মন্তব্য করার জন্য লগইন করুন!